নাটোর ভিশন-২০৪১ঃ ‘কর্মসংস্থান ছাড়া কোন ভিশনই মঙ্গল বয়ে আনবে না’-কালাম

নাটোর: নাটোর-১ আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এডভোকেট আবুল কালাম আজাদ বলেছেন, নাটোর ভিশন-২০৪১ নিঃসন্দেহে একটি দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা। তবে জেলা প্রশাসন কর্তৃক প্রস্তাবিত এ কর্মপরিকল্পনায় নাটোরের বৃহৎ জনগোষ্ঠীর বেকারত্ব দূরীকরণে স্পষ্ট কোন প্রস্তাবনা নেই। তরুণ জনগোষ্ঠীকে বেকার রেখে, নাটোরের জন্য কোন ভিশনই মঙ্গল বয়ে আনবে না। জেলার সর্ববৃহৎ শ্রমঘন এলাকা হিসেবে নাটোরের লালপুর উপজেলার জন্য আলাদা পরিকল্পনার দাবীও জানাচ্ছি। এ কাজে আমার পক্ষ থেকে সবরকম সহযোগিতা থাকবে।
গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে নাটোর ভিশন-২০৪১ প্রণয়নে জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক ও সুধীজনদের সাথে মতবিনিময়কালে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন সাংসদ।
তিনি বলেন, তার নির্বাচনী এলাকা লালপুর ও বাগাতিপাড়ায় বিদ্যুৎতায়ন, অবকাঠামোগত উন্নয়নসহ বিভিন্নরকম উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড এখন দৃশ্যমান। ভবিষ্যতে নর্থ বেঙ্গল সুগারমিলে শিল্পপার্ক স্থাপনের মাধ্যমে শ্রমঘন এ অঞ্চলে বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানের যে নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে তা দৃষ্টান্ত হতে পারে নাটোর ভিশন-২০২১ এর জন্য।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যদি দেশের জন্য ভিশন-২০৪১ ঘোষণা ও তা বাস্তবায়নের জন্য কাজ করে যেতে পারেন, তবে আমরাও একটি জেলার জন্য সে ভিশন অবশ্যই বাস্তবায়ন করতে পারবো। যে জাতি স্বাধীনতার জন্য রক্ত দিতে পারে, তাদের অসাধ্য কিছুই হতে পারে না। লালপুর ও বাগাতিপাড়াবাসীর কর্মসংস্থান নিশ্চিতে সর্বাতœক সহযোগিতা করা হবে। তবে অবশ্যই ভিশন বাস্তবায়নে জনপ্রতিনিধি ও জনগণকে সম্পৃক্ত করতে হবে।
মতবিনিময় সভায় জেলা প্রশাসক শাহিনা খাতুন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রাজ্জাকুল ইসলাম, বিভিন্ন উপজেলার চেয়ারম্যানসহ সুধীজনরা উপস্থিত ছিলেন। তবে ৪৫ টি সরকারী অফিসের পৃথক পৃথক ভিশন তুলে ধরার সময় দু-একটি ছাড়া তাদের কোন প্রতিনিধি ছিলেন না।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.