নাটোরের গুরুদাসপুরে চাকরীর মেয়াদ শেষেও পদ আকড়ে অধ্যক্ষ, প্রতিবাদে মানববন্ধন।

গুরুদাসপুর: নাটোরের গুরুদাসপুর রোজী মোজাম্মেল মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মো. ইব্রাহিম হোসেনের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন কলেজের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মচারীরা। পরে এ সংক্রান্ত অভিযোগ এনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন দপ্তরে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।
আজ শনিবার বেলা ১১টার দিকে কলেজের সামনের সড়কে ওই মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করা হয়। এসময় অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে মেয়াদউত্তীর্ণ হওয়া সত্ত্বেও স্বপদে বহাল থেকে কলেজে অবস্থান নিয়ে বিধিবর্হিভূতভাবে জুনিয়র শিক্ষক মায়ারানী চক্রবর্তীকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব দেওয়া, যৌনহয়রানী, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সাথে অশালীন আচরণ, নিয়োগসহ বিভিন্নভাবে প্রায় কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে অধ্যক্ষ মো. ইব্রাহিম হোসেনের বিরুদ্ধে ওই কর্মসূচি পালন করা হয়।
এসময় বক্তব্য রাখেন শিক্ষকদের মধ্যে উপাধ্যক্ষ মো. আবুল কালাম আজাদ, সহকারি অধ্যাপক এএইচএম একরামুল হক খোকন, মো. মজিবর রহমান, রাশিদুল ইসলাম ও মো. মাজেম আলী প্রমূখ।
এ ব্যাপারে অধ্যক্ষ মো. ইব্রাহিম হোসেন বলেন, আজ ৭ জুলাই পর্যন্ত অধ্যক্ষ হিসেবে তাঁর চাকরির মেয়াদ। টাকা আত্মসাত হয়ে থাকলে কমিটি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হোক।
তিনি আরো বলেন, কলেজ পরিচালনা কমিটি তাকে অতিরিক্ত আরো দুই বছরের জন্য অধ্যক্ষের পদ বর্ধিত করেছেন। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন করা হয়েছে। অনুমোদন হলে অধ্যক্ষ হিসেবে থাকতে পারব, না হলে থাকতে পারবনা। স্থানীয় সাংসদ মো. আব্দুল কুদ্দুসের ভাতিজি জামাই আবুল কাশেমকে সভাপতি না রাখার কারনে তিনি ক্ষুব্ধ হয়ে আমার বিরুদ্ধে এসব করাচ্ছেন।
এ ব্যাপারে কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও পৌর মেয়র মো. শাহনেওয়াজ আলী বলেন, বিধিমোতাবেক অধ্যক্ষ হিসেবে বহাল রয়েছেন ইব্রাহিম হোসেন। স্থানীয় সাংসদ মো. আব্দুল কুদ্দুসের প্ররোচনায় কলেজের কতিপয় শিক্ষক এধরনের অভিযোগ এনে শিক্ষার্থীদের দিয়ে মানববন্ধন কর্মসূচী করেছেন। এটা নীতি পরিপন্থি।
এব্যাপারে স্থানীয় সাংসদ মো. আব্দুল কুদ্দুস এলাকায় না থাকায় তাঁর মুঠোফোনে যোগাযোগ করেও বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.