নাটোরে বিজয় ফুল উৎসবে কোমলমতি হাজারো শিশু

নাটোর: মাফিউর রহমান। প্রথম শ্রেণীতে পড়ে। বিজয় ফুল উৎসবে সহপাঠিদের সাথে বুধবার নাটোরের শংকর গোবিন্দ চৌধুরী আধুনিক স্টেডিয়ামে এসেছিল। এই বিজয় ফুল উৎসব দেখতে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আরো কোমলমতি হাজারো শিশু এসেছিল। মাঠে ঠুকেই বিমোহিত হয় তারা। হয় আনন্দে উদ্বেলিতৎ। মাঠের চারিদিকে ফুল আর ফুল দিয়ে সাজানো। সব ছিল শাপলা ফুলের আদলে করা কাগজের বিজয়ের শাপলা ফুল। আয়োজকরা উৎসবে আসা শিশুদের জন্য আয়োজন করে কাগজের ফুল বানানো ও ছবি আঁকা। কোমলমতি শিশুদের কেউ কেউ ছবি আঁকে। কেউবা ফুল বানাতে লেগে পড়ে।
এই চিত্রাংকন বা ছবি আঁকা প্রতিযোগীতায় অংশ নেওয়া শিশুরা বিজয় ফুল উৎসবে আঁকে বাংলাদেশ ও বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং মুক্তিযুদ্ধের ছবি। এসময় তাদের দেখে মনে হচ্ছিল ওরা যেন যুদ্ধ ক্ষেত্রে বসেই এসব ছবি আঁকছে।
জিজ্ঞাসা করলে মাফিউর রহমান বলে, বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ। তিনিই আমাদের জাতির পিতা। এই দেশটার জন্য যুদ্ধ করতে হয়েছিল। তার কন্যা এখন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী। এসব এখন আমাদের স্কুলে পড়ানো হয়। স্কুল শুরুর আগে আমরা জাতীয় সঙ্গীত গাই। বিজয় উৎসব দেখতে আসা সকল শিশুই এখন জানে বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধুর কথা।
অনুষ্ঠানে সস্ত্রীক উপস্থিত নাটোর-২(সদর) আসনের সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুল কোমলমতি শিশুদের স্নেহ করেন এবং তিনি তাদের বিজয় ফুল শাপলা তৈরি ও ছবি আকাঁয় উৎসাহ দেন। উৎসবে আসা সদর উপজেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অংশ নিয়ে বিজয় ফুল শাপলা তৈরি করে এবং সেগুলো প্রদর্শন করা হয়।
বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষকরা বলেন, বিজয় ফুল উৎসব শিশুদের মুক্তিযুদ্ধের সাথে পরিচিত করেছে। তাদের আনন্দ দিয়েছে। কোমলমতি শিশুরা এখন এসব নিয়ে রচনা লিখতে পারে। শাপলা ফুল সম্পর্কে তারা নানা প্রশ্ন করেছে। বিজয় ফুল উৎসব কেন শাপলা ফুল নিয়ে আয়োজন করা হয়েছে। প্রথমবারের মত এই বিজয় ফুল উৎসব শুধু শিশুরা নয় সব বয়সী মানুষদের আনন্দ দিয়েছে। ভাল লেগেছে বিজয় ফুল উৎসব।
সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেসমিন আক্তার বানু বলেন, শিশু ও ছাত্র সহ আগামী প্রজন্মকে মহান মুক্তিযুদ্ধের সাথে পরিচিত করতে এই বিজয় ফুল উৎসবের আয়োজন করা হয়।
সদর উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত এই বিজয় ফুল উৎসবের অঅনুষ্ঠানিক উদ্বেধন করেন নাটোর-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুল। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা শিক্ষা অফিসার রমজান আলী আকন্দ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেসমিন আক্তার বানু,জেলা আওয়ামীলীগ যুগ্ম সম্পাদক সৈয়দ মোর্ত্তুজা আলী বাবলু, দপ্তর সম্পাদক দিলীপ কুমার দাস,রুহুল আমিন বিপ্লব জেলা ক্রিড়া সংস্থার সেক্রেটারী সৈয়দ মোস্তাক আলী মুকুল,ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব মোস্তারুল ইসলাম আলম প্রমুখ।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.