প্রতিমন্ত্রী পলকের নির্দেশের পর থামলেন ছাত্রলীগ নেতা

নাটোর অফিস ॥
আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের হস্তক্ষেপ ও নির্দেশনায় হাটের জায়গা নিার্মনাধীন ছাত্রলীগ নেতার নাটোরের সিংড়া উপজেলার তাজপুর ইউনিয়নের তেমুক নওগাঁ বাজারে হাট পেরীফেরীর জায়গা জবর দখল করে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রৌওনক হাসান হারুনের বিরুদ্ধে কার্যালয় নির্মাণের অভিযোগ ওঠে। শুক্রবার দুপুরে ছাত্রলীগ নেতা রৌওনক হাসান হারুনের নির্দেশে ৯ জন লেবার একটি ঘর নির্মান কাজ শুরু করে। এতে এলাকার মানুষদের মধ্যে বিরুপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। এই খবর অবগত হওয়ার পর আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলকের নির্দেশে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সহ প্রশাসনের লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘর নির্মান কাজ বন্ধ করেন এবং ঘর তৈরির মালামাল নিয়ে যান।
স্থানীয়রা জানান, হাটের যে স্থানে ছাত্রলীগ নেতার অফিস ঘর নির্মান করা হচ্ছিল সেখানে একটি শহীদ মিনার এবং একটি মালিকানাধীন মার্কেট রয়েছে। এছাড়া ্ওই এলাকায় হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষের বসবাস। ছাত্রলীগ নেতা জায়গাটি জবর দখল করে তার অফিস ঘর নির্মান শুরু করেন। এতে করে একদিকে এলাকার মানুষদের চলাচল বাধাগ্রস্থ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া মার্কেটের সামনে ঘর নির্মানের কারনে মার্কেট অকেজো হয়ে পড়বে।
ওই মার্কেটের মালিক বিপুল কুমার সাহা বলেন, তার মার্কেটের সামনে জবর দখল করে ছাত্রলীগ নেতা কর্মীরা ঘর নির্মাণ করছেন। তিনি নিষেধ করায় তাকে হুমকি দেয়া হয়েছে।
স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতা ও ১নং ওয়ার্ড আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ভীম কুমার সাহা বলেন, প্রতিদিন সকালে এখানে দুধ হাট বসে। পাশাপাশি বাজারে কৃষিপণ্য আনা-নেয়ার ভ্যানগাড়ীগুলো এখানে রেখে মালামাল অপসারণ করা হয়। এখানে ঘর নির্মিত হলে একটি পাকা মার্কেট অকেজো ও বাদ্যকর পাড়ার প্রায় ২০ থেকে ২৫টি পরিবারের লোকজনের চলাচল বন্ধ হয়ে যাবে।
তেমুক নওগাঁ বাজার কমিটির সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক শ্রী পঙ্কজ কুমার সাহা বলেন, এটা তেমুক বাজারের হাট পেরীফেরীর জায়গা। শুনেছেন ছাত্রলীগ নেতা রৌওনক হাসান হারুন তার জন্য কার্যালয় নির্মাণ করছেন। জনগণের অসুবিধা করে কোন দলীয় বা ব্যক্তিগত কার্যালয় নির্মাণ এটা মেনে নেওয়ার মতো নয়। বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সহ উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দকে জানালে তারা সিংড়ার কৃতি সন্তান আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলককে অবগত করেন।
এবিষয়ে জানতে অভিযুক্ত উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রৌওনক হাসান হারুনের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, সেখানে তার গ্রামের বাড়ি। যে ঘরটি তিনি নির্মান করছেন সেটি আমার ব্যক্তিগত বা ছাত্রলীগের কার্যালয় নয়। স্থানীয় মুসলিম সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দের বসার জন্য বাজারে একটি আঞ্চলিক কার্যালয় নির্মাণ করা হচ্ছে। এটা নির্মাণের ফলে কারো কোন সমস্যা হবে না। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের অনুমতি নিয়েই এই ঘর নির্মাণ করছেন তিনি। পরে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ হাটের মধ্যে ঘর করা যাবেনা বলে জানালে ঘর নির্মান কাজ বন্ধ করা হয়।
তাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিনহাজ উদ্দিন বলেন, তিনি কাউকে ঘর নিমার্নের অনুমতি দেননি। হাটের জায়গা দখল করে কার্যালয় নির্মাণে সাধারণ জনগণের চরম সমস্যার সৃষ্টি হবে। এবিষয়ে নিষেধ করেও কোন কাজ হয়নি। তার ইউনিয়নে কোন আঞ্চলিক কার্যালয়ের দরকার নেই। কোন ছাত্রলীগ নেতার কার্যালয় দরকার হলে তার এলাকায় গিয়ে করার পরামর্শ দেন তিনি। বিষয়টি তিনি আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলককে অবহিত করলে তিনি নির্মানাধীন ওই ঘর অপসারনের নির্দেশ দিলে তা অপসারন করা হয়েছে।
উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আল ইমরান বলেন, এবিষয়ে খোঁজ খবর নিয়ে ব্যবস্থা নিতে বলেছেন।

 

Spread the love
  • 73
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    73
    Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published.