নাটোরে তথ্যমন্ত্রী ইনুঃ ‘সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা রক্ষায় যথাসময়ে নির্বাচন’

নাইমুর রহমান, বড়াইগ্রাম থেকে
তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, নির্বাচনের আগে বিএনপির নির্দলীয় সরকারের দাবী সংবিধানে নেই। তাদের দাবী দেশের সাংবিধানিক সংকটকে উৎসাহিত করবে। দেশে সাংবিধানিক সংকট তৈরী হলে যে অস্বাভাবিক অবস্থা সৃষ্টি হয় তা গণতন্ত্রের, জনগন ও মুক্তিযুদ্ধেরর চেতনার জন্য ক্ষতিকর। তাই ২০১৯ সালের ৫ই জানুয়ারীর আগেই দেশে জাতীয় নির্বাচন ও ক্ষমতা হস্তান্তর হতে হবে। বর্তমান সরকার যথাসময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে প্রস্তত রয়েছে।

শনিবার রাত ৯টায় নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়া পৌরসভা চত্বরে নাটোর-৪ (গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম) আসনের নির্বাচনী পথসভা এসব কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী।

বিএনপিকে উদ্যেশ্য করে তিনি বলেন, ‘ বিএনপির লক্ষ্য নির্বাচন বানচাল করা, অংশগ্রহন নয়।
নির্দলীয় সরকার গঠনের নামে তারা ভূতের সরকার নাজিল হওয়ার সুযোগ করে দিয়ে দন্ডিত খালেদা জিয়া, আগুন সন্ত্রাস, রাজাকার ও জঙ্গীদের মুক্ত করা তাদের লক্ষ। রাজনীতির বিষবৃক্ষ বিএনপি খুনী, রাজাকার, বিএনপির ঠিকানা’। যে দল সংবিধান মানে না, আইন মানে না, তাদের সাথে রাজনৈতিক ঐক্যের চেষ্টার কথা যারা বলে, তারা দেশকে অন্ধকারের দিকে ঠেলে দিতে চায়। এদের রাজনীতির বাইরে রাখলে বাংলাদেশ নিরাপদ গন্তবে এগুবে। ‘

গত ১০ বছর সকাল-বিকাল খালেদা জিয়া সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে গেছে মন্তব্য করে ইনু বলেন, ‘কখনো হেফাজত, কখনও আগুন সন্ত্রাস, কখনও জঙ্গিবাদের উপর ভর করে সরকার হটানোর চেষ্টা করেছে বিএনপি। শান্তিকামী জনতা ও ঐক্যবদ্ধ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর যৌথ প্রচেষ্টায় সব ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করা সম্ভব হয়েছে।

দেশের মানুষের কাছে প্রশ্ন রেখে জাসদ সভাপতি বলেন, ‘দেশ কোন পথে যাবে, সে সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় এসেছে। সুশাসন ও উন্নয়নের জোয়ার দেশে বইবে না-কি আগুন সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদের দিকে দেশ যাবে? ১০ বছরের উন্নয়ন, অর্জন ও শান্তির ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে কি না, এ-গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় এসেছে।’

‘বিএনপি এখনো হাল ছাড়েনি’ মন্তব্য করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘ বিএনপির অব্যাহত ষড়যন্ত্রের জন্য বাংলাদেশ এখনও নিরাপদ নয়। এখনও দেশ জঙ্গিবাদসহ বিভিন্ন ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে।’

সরকারের অর্জনগুলো মানুষের জীবন ছুঁয়ে গেছে- মন্তব্য করে ইনু বলেন, ‘খাদ্য, বিদ্যুৎ উৎপাদন, শ্রমিকদের মজুরী বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সরকার অভাবনীয় সাফল্য দেখিয়েছে। এতোকিছুর পরও বিএনপি এদেশে সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্র করে চলেছে।’

তথ্যমন্ত্রী দৃঢ়তার সাথে বরেন, ‘ আ’লীগ-জাসদের ঐক্য ইস্পাত কঠিন ঐক্য। জাসদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে থাকলে রগকাটা বাহিনীর কাউকে মুক্ত করতে দেয়া হবে না, দুর্নীতিবাজদের সাজা মওকুফ করতে দেয়া হবে না, আগুন সন্ত্রাসদের রেহাই দেয়া হবে না। দেশের রাজনীতিতে বিএনপি নামক বিষবৃক্ষে বাড়তে দেয়া হবে না।’

‘বিপদ এখনো কাটেনি’ মন্তব্য করে ইনু বলেন, ‘ আসছে ভোট গুরুত্বপূর্ণ। ভোটে সুশাসন ও সমৃদ্ধির জন্য লড়াই হবে। মহাজোটের সাথেই জাসদের ভোট হবে।’

নির্বাচনকালী জাতীয় ঐক্য প্রসঙ্গে জাসদ সভাপতি বলেন, ‘বিএনপির নির্দলীয় সরকারের দাবীতে কামাল হোসেনদের পাঁচ দফা দাবী বিলীন হয়ে গেছে। কামাল হোসেনদের পাঁচ দফা বিএনপি জামাতকে পুনর্বাসন করার দফা। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিপরীতে মহাচক্রান্তের ফাঁদে পা না দিতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ‘

বড়াইগ্রাম উপজোলা জাসদের সভাপতি আলহাজ্ব মহিবুর রহমানের সভাপতিত্বে এসময় অনান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাসদ কেন্দ্রিয় কমিটির সহ-সভাপতি শফীউদ্দিন মোল্লা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুর রহমান চুন্নু,রোকনুজ্জামান রোকন, জনসংযোগ সম্পাদক শরিফুল কবির স্বপন, ছাত্রলীগ (জাসদ) সভাপতি আহসান হাবীব শামীম, বড়াইগ্রাম পৌরসভার মেয়র কে এম জাকির হোসেন, উপজেলা চেয়ারম্যান ডাঃ সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারী প্রমুখ।

পথসভা থেকে নাটোর-৪ আসনের জন্য ডি এম আলাম ও নাটোর-১ আসনে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনকে      একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেন হাসানুল হক ইনু।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.