অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন নিশ্চিত করা হবে – রফিকুল ইসলাম

নাটোর অফিস ॥
নির্বাচন কমিশনার মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেছেন, চলমান ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নির্বাচন কমিশন কার্যকর সকল পদক্ষেপ গ্রহন করেছে। পূর্ববর্ত্তী নির্বাচনগুলোতে নির্বাচনের আগের দিনে কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসারদের নিকট ভোট গ্রহনের অন্যান্য সরঞ্জামাদির সাথে ব্যালট পেপার হস্তান্তর করা হতো। এখন নির্বাচনের দিন সকালে কেন্দ্রগুলোতে ব্যালট পেপার পৌঁছনো হচ্ছে। এর সুফল হিসেবে রাতে ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগমুক্ত নির্বাচন আয়োজন এবং কেন্দ্রগুলোতে ভোটগ্রহন কর্মকর্তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হচ্ছে। আমি বিশ্বাস করি নির্বাচন সংশ্লিষ্টদের সদিচ্ছা থাকলে কোন দুর্ঘটনা ঘটবে না । সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
আগামী ২৮ নভেম্বর নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহন কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে নির্বাচন কমিশনার এ কথা বলেন।
নির্বাচন কমিশনার আরো বলেন, ভোটগ্রহন কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে নির্বাচন কমিশনার বলেন, নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের নীতিমালা প্রণয়ন এবং নির্দেশনা প্রদান করে আর আপনারা ভোটকেন্দ্রে ঐ নির্দেশনা বাস্তবায়ন করেন। বাস্তবায়ন কাজ সঠিক হলে নির্বাচন কমিশনের ভাবমূর্তি ইতিবাচক হয়। তাই আপনাদের উপরই অভিযোগমুক্ত নির্বাচন আয়োজন নির্ভর করছে। কোন পেশী শক্তির কাছে আপনারা মাথা নত করবেন না। ভোটগ্রহনের দিনসহ এর পূর্ববর্ত্তী ও পরবর্ত্তী সময়ে আপনাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে।
জনপ্রতিনিধিদের উদ্দেশ্য করে নির্বাচন কমিশনার বলেন, ভোটের দিনে ভোট কেন্দ্রে এসে ভোট দিয়ে চলে যাবেন। কেন্দ্রে অবস্থান করবেন না। কোন প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করবেন না।
উপজেলা জিমনেশিয়ামে জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদের সভাপতিত্বে আয়োজিত এই কর্মশালায় বিশেষ অতিথি ছিলেন রাজশাহী বিভাগীয় আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ ফরিদুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা, জেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ আছলাম , উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রিয়াংকা দেবী পাল প্রমুখ।
পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা প্রিজাইডিং অফিসারদের উদ্দেশ্যে বলেন, ভোটাররা ভোটকেন্দ্রে যাতে অবাধে যেতে পারেন, তার সব ব্যবস্থা করা হচ্ছে। প্রিজাইডিং অফিসাররা সততা, দক্ষতা ও নিরপেক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করবেন। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি দেখবো আমরা। কিন্তু ভিতরের অবস্থা দেখবেন আপনারা। সকলে এক সঙ্গে নিরপেক্ষ কাজ করলে আশা করি ২৮ তারিখের নির্বাচন সুষ্ঠু হবে।
জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদ বলেন, ভোটগ্রহণ শেষে দ্রুততম সময়ে ভোট গণনা করে কেন্দ্রে ঘোষণা দিয়ে উপজেলায় রিপোর্ট করবেন। বিকেল ৪টায় ভোটগ্রহণ শেষ হলেও অনেক কেন্দ্রে দেখা যায় রাত ১০টা বাজলেও ভোটগণনা শেষ হয় না। এসব কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসাররা বিপাকে পড়েন। পাশাপাশি নানা রকম গুজব ছড়িয়ে পড়ে। তখন উদ্ভূত পরিস্থিতি সামাল দিতে প্রশাসনকে বেগ পেতে হয়। তাই ঝুঁকি না নিয়ে দ্রুততার সাথে ভোট গণনা করে ঘোষণা করবেন।
জেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ আছলাম জানান, নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভোট গ্রহন কর্মকর্তাদের দুই দিনের প্রশিক্ষণ কর্মশালায় গতকাল ৬০০ জন পোলিং অফিসার প্রশিক্ষণ গ্রহন করেন। মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিনে ৪৮ জন প্রিজাইডিং অফিসার এবং ২৯৫ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অংশগ্রহন করছেন। প্রশিক্ষিত ভোট গ্রহনকারী কর্মকর্তাবৃন্দ আগামী ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য বাগাতিপাড়া উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভোট গ্রহনের দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবেন। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ২৬ জন, সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার পদে ৫৯ জন এবং মেম্বার পদে ১৯২ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। উপজেলার ৪৮টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহন করা হবে।

Spread the love
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    3
    Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *