নাটোরে ডিসি-এসপিসহ টিকা নিয়েছেন ২০৭ জন

নাটোর অফিস ॥
সারা দেশের মত নাটোরেও করোনা মহামারি প্রতিরোধে কোভিড-১৯ এর টিকাদান কর্মসূচীর আওতায় প্রথম দিন টিকা গ্রহন করেছেন জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার,  বীরমুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিকসহ জেলায় ২০৭ জন। এখন পর্যন্ত সুরক্ষা অ্যাপসে জেলায় নিবন্ধন করেছেন ৬ হাজার ৬৭ জন।
রোববার (০৭ ফেব্রুয়ারী) সকাল ১০ টার দিকে নাটোর সদর হাসপাতালে কোভিড-১৯ এর টিকা গ্রহণের মধ্য দিয়ে টিকা প্রয়োগের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মো: শাহরিয়াজ। পরপর পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহাঙ্গীর আলম, সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ মঞ্জুরুর ইসলাম, সিনিয়র সাংবাদিক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা নবীউর রহমান পিপলু, ইউনাইটেড প্রেস ক্লাবের সাধারন সম্পাদক বুলবুল আহমেদ ,অ্যাডভোকেট মুক্তার হোসেন,জেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক দিলীপ কুমার দাস, পৌর আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক হাবিবুর রহমান চুন্নু ,স্বাস্থ্য কর্মী আনন্দ কুমারসহ ২৭ জন টিকা গ্রহন করেছেন। এসময় সদর হাসপাতালের প্রথম টিকা গ্রহন করেন সিনিয়র স্টাফ নার্স মোহাম্মদ আলী শেখ। এরপর একজন স্বাস্থ্য পরিদর্শক এবং পুলিশ লাইনসের উপ-পরিদর্শক বদিউজ্জামান। তারা টিকা গ্রহন করে কোন পার্শ্ব প্রতিক্রীয়া নেই বলে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। এসময় স্থানীয় নাটোর-২ আসনের সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুল, সিভিল সার্জন ডাঃ কাজী মিজানুর রহমান,পৌর মেয়র উমা চৌধুরী জলি সহ আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
অপরদিকে সকাল ১০টার দিকে সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে উপজেলার সম্মুখ যোদ্ধা সরকারী ককর্মকর্তা, পুলিশ, সাংবাদিক, স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা, কর্মচারীদের করোনা ভ্যাকসিন টিকা প্রদানের উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। প্রথম দিন এই উপজেলায় ৬৫ জন করোনা টিকা গ্রহন করেছেন। গুরুদাসপুর উপজেলায় কোভিড-১৯ টিকাদান কেন্দ্রের আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন নাটোর-৪ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস। এসময় ডাক্তার, নার্স, বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ রেজিষ্ট্রেশনভুক্ত ৪১ জনকে টিকা দেওয়া হয়। সাংসদ অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দস টিকা গ্রহণকারী ৪১ জন নারী পুরুষকে উৎসাহিত করতে শাড়ী ও লুঙ্গি প্রদান করেন। পাশাপাশি করোনামুক্ত থাকতে সবাইকে পর্যায়ক্রমে টিকা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, অক্সফোর্ডের টিকা পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে নিরাপদ ও গ্রহণযোগ্য। তাই এর কোনো পাশর্^প্রতিক্রিয়া নেই।
লালপুর উপজেলায় প্রথম সারির করোনা যোদ্ধাদের টিকাদানের মধ্য দিয়ে কোভিড -১৯ করোনা ভাইরাসের টিকাদান কর্মসুচির উদ্বোধন করেন নাটোর -১ ( লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনের সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল। তিনিও টিকা গ্রহনের জন্য সাধারন মানুষকে আহবান জানান। লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা একেএম শাহাব উদ্দীন জানান, এই উপজেলায় উপজেলায় প্রথম পর্যায়ে সাড়ে তিন হাজার মানুষকে এ টিকা দেয়ার জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত মাত্র ৯৩৭ জন রেজিষ্ট্রেশন করেছেন। সকলকে টিকা নেয়ার জন্য রেজিষ্ট্রেশন করতে আহবান জানানো হচ্ছে।
নাটোরের সিভিল সার্জন ডা. কাজী মিজানুর রহমান জানান, জেলায় প্রাথমিক ভাবে ৪৮ হাজার ডোজ টিকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এখন পর্যন্ত সুরক্ষা অ্যাপসে নিবন্ধন করেছেন ৬ হাজার ৬৭ জন। সুষ্ঠু এবং শান্তিপূর্ণ ভাবে টিকাদানের জন্য সদর হাসপাতালে চারটি বুথের মাধ্যমে টিকা প্রয়োগ করা হচ্ছে। এছাড়া জেলার সাতটি সরকারী হাসপাতালে তিনজন চিকিৎসকের সমন্বয়ে একটি করে মেডিকেল টিম এবং অ্যাম্বুলেন্স প্রস্তুত রাখা হয়েছে। প্রথম দিন জেলায় ২০৭ জন টিকা গ্রহন করেছেন। সুরক্ষা অ্যাপসে নিবন্ধন প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।
টিকা গ্রহন শেষে জেলা প্রশাসক মো: শাহরিয়াজ জানান, টিকা গ্রহনের বেশ কিছু সময় পার হয়েছে। কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। যারা টিকা গ্রহন করতে ইচ্ছুক তাদের সুরক্ষা অ্যাপসের মাধ্যমে নিবন্ধন করে এটি গ্রহনের জন্য আহবান জানাচ্ছি।

Spread the love
  • 97
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    97
    Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *