নাটোরে পুলিশি তৎপরতা মধ্যেও চুরি-ডাকাতির মহোৎসব!

নাটোর: আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় বিভিন্ন স্থানে জনসচেতনতা মূলক সভা করছে নাটোরের বাগাতিপাড়া মডেল থানা পুলিশ। পুলিশের এমন তৎপরতার পরেও বেড়েই চলেছে চুরি-ডাকাতির ঘটনা। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বাসাবাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কোনকিছুই বাদ যাচ্ছে না এেসব অপরাধ থেকে। শুধু গত চার দিনে চার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ ৬টি চুরির ঘটনা ঘটেছে। ঘরের তালা ভেঙ্গে, কখনও সিঁধ কেটে চুরির ঘটনা ঘটছে। ল্যাপটপ, নগদ অর্থসহ খোয়া গেছে মালামাল। এছাড়াও দুটি বাড়িতে ডাকাতির ঘটনাও ঘটেছে।
এসব ঘটনায় কেউ কেউ থানায় অভিযোগ করেছেন, আবার কেউ কেউ হয়রানি তেকে বাঁচতে পুলিশকে কিছুই জানায়নি। তবে এখন পর্যন্ত সংঘটিত চুরি বা ডাকাতির কোন ঘটনার রহস্য উদঘাটন ও জড়িত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। জানা গেছে, গত শনিবার দিবাগত রাতে উপজেলার মাড়িয়া গ্রামে কাঠমিস্ত্রি বাবু’র বাড়িতে চুরি হয়। জানালার গ্রিলের স্ক্রু খুলে ঘরের ভেতরে প্রবেশ করে একটি বাই সাইকেল ও নগদ টাকা চুরি করে চোরের দল। একই রাতে একই গ্রামের নাজমুলের বাড়িতে সিঁধ কাটে। এর আগে শুক্রবার দিবাগত রাতে বাটিকামারী উচ্চ বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষের তালা ভেঙ্গে প্রবেশ করে ঘরে থাকা আলমারী ভেঙ্গে মালামাল চুরি হয়। এছাড়া একই রাতে তকিনগর আইডিয়াল হাইস্কুল এ্যান্ড কলেজের কম্পিউটার ল্যাবরেটরি কক্ষের দরজা ভেঙ্গে চুরির চেষ্টা করে। অন্যদিকে ওই রাতেই মুরাদপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষের তালা ভেঙ্গে ঘরের ভেতরে প্রবেশ করে ঘরে থাকা আলমারীর ড্রয়ের ভেঙ্গে তিন হাজার টাকা, পেনড্রাইভ চুরি হয়। ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এসএম সেলিমুজ্জামান এব্যাপারে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।
অপরদিকে বুধবার দিবাগত রাতে জয়ন্তিপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষের তালা ভেঙ্গে আলমারী থেকে দুটি ল্যাপটপ ও সাড়ে ১৮ হাজার নগদ টাকা চুরি হয়। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুলতান উদ্দিন আহম্মদ থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। তাছাড়াও গত ৭ সেপ্টেম্বর রাতে মাড়িয়া নিংটিপাড়া গ্রামের শহীদুল ইসলামের বাড়ির জানালার গ্রিল কেটে ঘরে প্রবেশ করে পরিবারের সদস্যদের দেশীয় অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে স্বর্নালংকার ও ২৭ হাজার নগদ টাকা লুট করে ডাকাত দল। একই রাতে শহীদুলের প্রতিবেশী আরাফাতের বাড়ি থেকেও স্বর্ণালংকার ও নগদ ২৫ হাজার টাকা লুটে নেয় ডাকাতরা।
এদিকে গত শুক্রবার বিকালে লোকমানপুর বাজারে থানার উদ্যোগে এলাকার চুরি-ডাকাতি রোধ কল্পে ও আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে জনসাধারনের সাথে সচেতনতামুলক বৈঠক করেছেন বাগাতিপাড়া মডেল থানা পুলিশ। ওই বৈঠকে ওসি (চলতি দায়িত্বে) স্বপন কুমার চৌধুরী বিভিন্ন বাজারে পাহাড়ার ব্যবস্থা গ্রহণের পরামর্শ দেন।
এ ব্যাপারে বাগাতিপাড়া মডেল থানার ওসি (চলতি দায়িত্বে) স্বপন কুমার চৌধুরী বলেন, ‘আইনশৃঙ্খরা পরিস্থিতি এখন আগের চেয়ে ভালো। বিচ্ছিন্ন ঘটনাগুলোর ব্যাপারে এলাকাবাসী, হাট-বাজার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে আমরা সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন অব্যাহত রেখেছি। সকলের সমন্বিত প্রচেষ্টায় আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা অব্যাহত আছে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.