নাটোরে পুষ্টি ও সামাজিক দক্ষতা উন্নয়নে কাজ করতে ২৫ কিশোরীর শপথ। 

নাটোর: অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী আদরী খাতুনের প্রতিবেশী আসগর শেখের কন্যা আসমাকে বিয়ে দেয়া হয়েছিল এক যুবকের সাথে। কম বয়সে বিয়ে হওয়ায় আসমার প্রথম সন্তানককে অপুষ্টিসহ সেও বিভিন্ন স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগছে এখনও।

বাল্যবিয়ের এমন পরিণতির কথাই বলছিলেন কিশোরী আদরী। তাই সে এখন দৃঢ়প্রতিজ্ঞ, আঠারো বছরের আগে বিয়ে না করার।

একই অঙ্গীকার নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার শিক্ষার্থী ববিতা খাতুন, বগুড়ার নন্দীগ্রামের হ্যাপী খাতুন, সিরাজগঞ্জের সীমা আক্তার, সাদিয়া পারভীনদের। শুধু তাই নয়, বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে নিজ এলাতেও তারা এখন সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন করতে চায়। চায় যৌতুক, ইভটিজিং ও নারী নির্যাতন প্রতিরোধে সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে। এছাড়া নারীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় স্বাস্থ্য-সম্মত টয়লেট ব্যবহার, স্বাবলম্বী হতে বাসতবাড়িতে হাঁস-মুরগী পালন এবং পুষ্টিকর খাদ্য গ্রহনে তারা কাজ করতে চায়।

সোমবার দিনব্যাপী ‘ফুড সিকিওরিটি ২০১২ বাংলাদেশ’ নামক প্রকল্পের আওতায় উজ্জীবিত কিশোরীদের ‘পুষ্টি ও সামাজিক দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ’ কর্মসূচীতে অংশ নিয়ে কিশোরীরা এসব অঙ্গীকার করে। পিকেএসএফ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের সহযোগিতায় নাটোর  টিএমএসএস ক্যাম্পাসে দিনব্যপী প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়। প্রশিক্ষণে নাটোর, বগুড়া, পাবনা, সিরাজগঞ্জ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের ১৬ জন মাধ্যমিক ও ৯ জন উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের ছাত্রী অংশগ্রহণ করে।

প্রশিক্ষণে  কেএসএফ (উজ্জীবিত) উপ-প্রকল্প সমন্বয়কারী (প্রশিক্ষণ) ম. মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়া বলেন, দেশ হতে অপুষ্টি, বাল্য বিবাহ, যৌতুক আর ইভ-টিজিং এর মতো সামাজিক ব্যাধি দূরীকরণের মহাশক্তি হতে পারে উজ্জীবিত কিশোরীরা। তাদের সম্মিলিত প্রয়াসে দূর হবে সমাজের সকল অসঙ্গতি।’

টিএমএসএস এর যুগ্ম পরিচালক  মো. কামরুজ্জামান খান এর সভাপতিত্বে প্রশিক্ষণ উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন টিএমএসএস এর উপ-পরিচালক কুমার মনিশংকর হালদার, ঋণ কার্যক্রমের বিভাগীয় প্রধান রফিকুল ইসলাম, টিএমএসএস উজ্জীবিত প্রকল্পের সহ:সমন্বকারী মো. আব্দুর রশিদ।

টিএমএসএস ইউপিপি-উজ্জীবিত প্রকল্প কর্তৃক আয়োজিত নাটোর টিএমএসএস প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে দুটি জেলা নাটোর ও সিরাজগঞ্জ এর ১০ টি উজ্জীবিত কিশোরী ক্লাব হতে মোট ২৫ জন কিশোরী নেত্রী উক্ত প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন। প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সকল কিশোরী স্ব-স্ব এলাকায় বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ ও পুষ্টি প্রমোটর হিসেবে কাজ করবে।

উল্লেখ্য যে, ইউরোপীয়ান ইউনিয়ন অর্থায়নে পিকেএসএফ এর সহযোগীতায় টিএমএসএস দেশের পাঁচটি জেলায় ( নাটোর, সিরাজগঞ্জ, চাঁপাই, বগুড়া ও নওগাঁ) বাল্য বিবাহ ও অপুষ্টি দূরীকরণে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে ১৭২ টি কিশোরী ক্লাবে প্রায় ৩ হাজার ৪শ’ কিশোরীকে উক্ত কার্যক্রমের সাথে নিবিড়ভাবে সংযুক্ত করেছে। এই নেওয়ার্ক এর আওতায় দেশের ২৮ টি জেলার প্রায় ১৮ হাজার কিশোরী সম্পৃক্ত রয়েছে।

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.