নাটোরের লালপুরে ছাত্রী নিয়ে উধাওয়ের ঘটনায় শিক্ষক সাময়িক বরখাস্ত!

লালপুর: নাটোরের লালপুর উপজেলার ওয়ালিয়া হাকিমুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীকে নিয়ে উধাও হওয়ার ঘটনায় অভিযুক্ত গণিতের শিক্ষক মামুন হোসেনকে (৩৫) সাময়িক বরখাস্ত করেছে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। রোবিবার (২৬ আগস্ট) দুপুরে বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির এক জরুরী বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়। এছাড়াও ভুক্তভুগী শিক্ষার্থীর পরিবারের পক্ষ থেকে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে।
জানাগেছে, গত শুক্রবার রাতে লালপুর উপজেলার ওয়ালিয়া হাকিমুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এ্যান্ড কলেজের একাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী নিলাকে (ছদ্ম নাম) নিয়ে একই প্রতিষ্ঠানের গণিত বিভাগের শিক্ষক মামুন হোসেন পালিয়ে যান। পরদিন শনিবার রাতে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে পরিবারের নিকট হস্তান্তর করেন এবং তৎক্ষনিক উদ্ভুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ ও পরিচালনা কমিটির পক্ষ থেকে অভিযুক্ত শিক্ষক মামুন হোসেনকে সাময়িক বহিস্কারের আশ্বাস দেন।
এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ রাকিব হোসেন বলেন, ‘ঘটনাটি জানার পর তাৎক্ষনিক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা,শিক্ষা কর্মকর্তা ও লালপুর থানার ওসিকে জানানো হয়। তারপর শনিবার অনেক চেষ্টার পরে মেয়েকে উদ্ধার করা হয় এবং রোববার দুপুরে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির এক জরুরী মিটিংয়ে শিক্ষক মামুন হোসেনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।’
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত শিক্ষক মামুন হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি পরিস্থিতির শিকার।’
এ ব্যাপারে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান বলেন, ‘ছাত্রীটিকে উদ্ধার করে পরিবারের জিম্মায় দেয়া হয়েছে। অপ্রাপ্তবয়স্ক শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন ভাবে প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে বাড়ি থেকে নিয়ে পালানোর অপরাধে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি ও বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষের সিদ্ধান্ত মোতাবেক অভিযুক্ত শিক্ষক মামুন হোসেন কে সাময়িক বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
লালপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জুয়েল জানান, ‘ঘটনাটি শুনেছেন তবে এখন পর্যন্ত কেউ কোন অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।’

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.